মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

বার্তা

পাংশা একটি গুরুত্বপূর্ণ ও এতিহ্যবাহী এলাকা।ঢাকা বিভাগের সর্ব পশ্চিমের উপজেলা এটি।খুলনাবিভাগের কুষ্টিয়া জেলা ও রাজশাহী বিভাগের পাবনা এলাকা সংলগ্নউপজেলা।এউপজেলার মাটিতে জন্মগ্রহন করেছেন অনেক জ্ঞানী গুনি ব্যক্তিবর্গ।তাঁদের মধ্যে ডঃ কাজী মোতাহার হোসেন, এয়াকুব আলী চৌধুরী, কাজী আব্দুল ওদুদ, রোকনুজ্জামান দাদাভাই অন্যতম।পাংশার সন্নিকটে কুষ্টিয়ার শিলাইদহে রয়েছে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কুঠিবাড়ী এবং ছেউরিয়ায় রয়েছে লালন একাডেমী।এই সকল কারনে এই এলাকাটি শিল্প, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক দিক থেকে একটি অগ্রসর জনপদ।বৃহৎ উপজেলা হিসেবে একদা পাংশার সুনাম ছিল।১৯ টি ইউনিয়ন পরিষদ সমন্বয়ে পাংশা উপজেলা গঠিত ছিলো। ১৯৮৯ সালে ০২ টি ইউনিয়ন পরিষদ রাজবাড়ী সদর উপজেলায় অর্ন্তভুক্ত হওয়ায় এবং ২০০৯সালে ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ নিয়ে কালুখালী উপজেলা গঠিত হওয়ায় বর্তমানে ১০টি ইউনিয়ন পরিষদ ও ১টি পৌরসভা পাংশার অধীনে রয়েছে।এই এলাকার জনগন অতিথি পরায়ন ও বন্ধুবৎসল।ধনী ব্যক্তিবর্গ এলাকায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসহ ও জনগনের উন্নয়নে প্রত্যক্ষ ভূমিকা পালন করে থাকেন।

 

নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, কর্মরত কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দ ও সাধারণ জনগনের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহনে পাংশা উপজেলা অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সকল ক্ষেত্রে একটি উন্নত এলাকা হিসেবে গড়ে উঠবে এ আশাবাদ ব্যক্ত করছি।